ট্রাইকোডার্মা জৈব সার

ট্রাইকোডার্মা একটি উপকারী অনুজীব। এটি মাটিতে থাকা খারাপ ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে এবং গোবর ও অন্যান্য জৈবকে দ্রুত পঁচিয়ে ট্রাইকোডার্মা জৈব সারে পরিনত করে। আমরা ট্রাইকোডার্মাকে কাজে লাগিয়ে ট্রাইকোডার্মা জৈব সার তৈরি করি। শহ‌রে মা‌টির পাওয়া যায় না , গোব‌র পাওয়া যায় না, যা ছাদ বাগা‌নের জন্য খুবই জরুরী এবং টব বা ড্রা‌মে গাছ রোপ‌নের জন্য অপ‌রিহার্য্য উপাদান । এই উপাদানের অভাব পুরন করবে ট্রাইকোডার্মা জৈব সার। এই জৈব সার ব্যবহা‌র কর‌লে মা‌টি কম লাগ‌বে, স্বল্প প‌রিমান মা‌টি ব্যবহার কর‌লেই হবে।

Product Code: J02

View More
Free Delivery 

৳ 40.00

Out of stock

Compare
  

ট্রাইকোডার্মা জৈব সারের উপকারীতাঃ

১।  ট্রা্ইকো-জৈব্ সার মাটিতে বসবাসকারী ট্রাইকোডার্মা ও অন্যান্য উপকারী অনুজীবের সংখ্যা বাড়িয়ে অনুর্বর মাটিকে দ্রুত উর্বরতা দান করে এবং ক্ষতিকর ছত্রাককে ধংস করে।

২। মাটির গঠন ও বুনট উন্নত করে পানি ধারণ ক্ষমতা বাড়ায়। পানির অপচয় রোধ করে।

৩।  মাটির অম্লতা, লবনাক্ততা, বিষক্রিয়া প্রভৃতি রাসায়নিক বিক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম।

৪। মাটি ও ফসলের রোগবালা্ই নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে রাসায়নিক বালাইনাশক ব্যবহারকে নিরুৎসাহিত করার ফলে পরিবেশের উন্নতি ঘটে এবং বিষমুক্ত খাদ্য-শস্য উৎপাদনের সম্ভাবনাকে বহুগুনে বাড়িয়ে দেয়।

৫।  গাছের প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদানের বেশির ভাগের উপস্থিতির কারনে কমপক্ষে ৩০% রাসায়নিক সার সাশ্রয় হয়।

৬। উদ্ভিদের বিভিন্ন প্রকার মাটিবাহিত রোগ যেমন-শিকড় ও কান্ড পঁচা, পাতা ঝলসানো ও দাগপড়া রোগ দমনে ট্রাইকোডার্মা জৈব সার বিশেষ ভূমিকা রাখে।

৭।  পিজি রিসার্সের বায়োটেকনোলজি বিভাগের একদল গবেষকের মতে, ঢলে পড়া (ড্যাম্পিং অফ) রোগে ট্রাইকোডার্মা সবচেয়ে বেশি কার্যকরী। তারা গবেষণায় আরো উল্লেখ করেন যে মরিচের বৃদ্ধি ও ফলনে ট্রাইকোডার্মার যথেষ্ট ভূমিকা আছে।

৮।  মাটির ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া, নেমাটোড ও প্যারাসাইট দমনে ট্রাইকোডার্মা জৈব সার সহায়তা করে।

৯।  মাটির উর্বরতা বৃদ্ধি এবং গঠন উন্নত করে। ফলে শিকড় ও মূল সহজে মাটির গভীরে প্রবেশ করে।

১০। পরিবেশবান্ধব (যেমন- মৌমাছির জন্য ক্ষতিকর নয়), মাটি শোধক (যেমন- কীটনাশক ও ছত্রাকনাশকের অবশিষ্টাংশ বা রেসিডিউ প্রভাব থেকে রক্ষা করে)।

১১।  এছাড়াও আপনার ফল, ফুল ও সবজীর ছত্রাকজ‌নিত সমস্যার সমাধান করে।

১২।  গা‌ছের শিকড় বৃ‌দ্ধি পা‌বে, ফ‌লে গাছ স‌ঠিক মাত্রায় খাদ্য গ্রহন কর‌তে পার‌বে।

১৩।  মা‌টি‌তে অনুজী‌বের সংখ্যা বৃ‌দ্ধি পা‌বে ।

১৪।  মা‌টি উর্বর থা‌কে ফ‌লে আ‌লো ও বাতাস মা‌টি‌তে স‌ঠিক ভা‌বে প্র‌বেশ ক‌রে ।

১৫। এই ট্রাই‌কোডার্মা জৈব সার ব্যবহার ক‌রে রাসায়‌নিক মুক্ত সব‌জি, ফুল ও ফল চাষ করা সম্ভব।

ট্রাইকোডার্মা জৈব সার ব্যাবহারের নিয়ম:

১। টব ও ড্রামে জৈবসার ১ ভাগ, মা‌টি/কোকো পিট ২ ভাগ রেসুতে নতুন গাছ লাগানোর জন্য মাটি তৈরি করতে হবে।

২। ১:২ রেসিও তে মা‌টি/কোকো পিট তৈরী ক‌রে গাছ রোপন করার পর প্র‌তি মা‌সে উপ‌রি প্র‌য়োগ হি‌সে‌বে ২০০ থে‌কে ৩০০ গ্রাম প‌রিমান ব্যাবহার ক‌রে মা‌টির সা‌থে মি‌শি‌য়ে পা‌নি দি‌তে হ‌বে।

৩। উপ‌রি প্রো‌য়োগ হি‌সে‌বে ফল গা‌ছে। প্র‌তি বছ‌র বয়‌সের জন্য ৫০০ গ্রাম ব্যবহার করা যায় যেমন ২ বছর বয়‌সের গা‌ছে ১ কে‌জি ট্রাইকোডার্মা জৈব সার ট‌বের উপ‌রে দি‌য়ে মা‌টির সা‌থে মিশিয়ে পা‌নি দিতে হবে।

৪। যে কোন গাছে ১ মাস পর পর ২০০ গ্রাম বা ৩০০ গ্রাম ট্রাইকোডার্মা জৈব সার ব্যবহার করা যে‌তে পা‌রে। তা‌তে আরও ভাল হয় ।

 

 

There are no reviews yet.

Be the first to review “ট্রাইকোডার্মা জৈব সার”