বেড প্লান্টার (পাওয়ার টিলার ছাড়া)

এই যন্ত্র ব্যবহারে অল্প সময়ে, অল্প খরচে অধিক পরিমান জমিতে বেড তৈরী, বীজ বপন, সার প্রয়োগের কাজ একই সাথে সম্পন্ন করা যায়।বেডে জমি চাষ করলে সেচে পানির অপচয় রোধ হয় এবং বৃষ্টির পানিতে ফসলের ক্ষতি হয় না।ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে চাষ করতে হলে, প্রথমে জমি চাষ, সার প্রয়োগ, কোদাল দিয়ে বেড তৈরী অতঃপর বীজ বপন করে মই দিয়েসমান করতে হয়। ফলে অধিক ব্যয় এবং আর্থিক ক্ষতি হয়।

Product Code: M17

 

View More
Free Delivery 

৳ 50,000.00

Compare
  

শক্তির উৎস্যঃ

১২ অশ্বশক্তির পাওয়ার টিলার

বেডের প্রশস্থতাঃ

৬০-৭০ সে.মি. (নিয়ন্ত্রণযোগ্য)

বেডের উচ্চতাঃ ১৫-২০ সে.মি.

বেড থেকে বেডের মধ্যবর্তী নালাঃ

৩০ সে.মি. চওড়া

কার্যক্ষমতাঃ ২৭ শতাংশ ঘন্টায়

বেডে ফসল ফলালে উৎপাদন খরচ কমে ও মাটির স্বাস্থ্য ভাল থাকে।

এই যন্ত্র দিয়ে ১-২ চাষে বেড তৈরি, সার প্রয়োগ ও বীজ বপনের কাজ একই সঙ্গে করা যায়।

বেড প্লান্টার দিয়ে গম, ভুট্টা, আলু, মুগ, তিল সহ বিভিন্ন প্রকার সবজি বীজ সফলভাবে বপন করা সম্ভব।

স্থায়ী বেডে ফসলের অবশিষ্টাংশ রেখেই শুণ্য চাষে বীজ বপন করা যায়।

স্থায়ী বেডে কেঁচো বাস করে বিধায় জমির উর্বরতা বাড়ে।

স্থায়ী বেডে কয়েক বছর চাষ করলে জমিতে জৈব পদার্থের পরিমাণ বাড়ে।

বেডে ফসল করলে ইছদুরের উৎপাত কমে।

বেডে ফসল চাষ করলে সেচ খরচ ও সময় ২৫% কমে।

যান্ত্রিক পদ্ধতি ম্যানুয়াল(প্রচলিত) পদ্ধতি

এই যন্ত্র ব্যবহারে অল্প সময়ে, অল্প খরচে অধিক পরিমান জমিতে বেড তৈরী, বীজ বপন, সার প্রয়োগের কাজ একই সাথে সম্পন্ন করা যায়।

বেডে জমি চাষ করলে সেচে পানির অপচয় রোধ হয় এবং বৃষ্টির পানিতে ফসলের ক্ষতি হয় না।

ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে চাষ করতে হলে, প্রথমে জমি চাষ, সার প্রয়োগ, কোদাল দিয়ে বেড তৈরী অতঃপর বীজ বপন করে মই দিয়ে

সমান করতে হয়। ফলে অধিক ব্যয় এবং আর্থিক ক্ষতি হয়।

 

 

 

There are no reviews yet.

Be the first to review “বেড প্লান্টার (পাওয়ার টিলার ছাড়া)”