পৃথিবীতে প্রায় ১২০ জাতের কবুতর পাওয়া যায়। বাংলাদেশে প্রায় ২০ প্রকার কবুতর রয়েছে। বাংলাদেশের সর্বত্র এসকল কবুতর রয়েছে। বাংলাদেশের জলবায়ু এবং বিস্তীর্ণ শষ্যক্ষেত্র কবুতর পালনের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। পূর্বে কবুতরকে সংবাদ বাহক, খেলার পাখি হিসাবে ব্যবহার করা হতো। কিন্তু বর্তমানে এটা পরিবারের পুষ্টি সরবরাহ, সমৃদ্ধি, শোভাবর্ধনকারী এবং বিকল্প আয়ের উৎস হিসাবে ব্যবহৃত হচেছ। এদের সুষ্ট পরিচর্যা, রক্ষণাবেক্ষণ এবং ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে সঠিকভাবে প্রতিপালন করে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখা যায়।আজকের লেখায় জানবো সিরাজি কবুতর খামার করে আয়ের কথা।

একটি ২০ জোড়া সিরাজি কবুতরের খামার থেকে প্রতিমাসে গড়ে ১০০০০ থেকে ২০০০০ টাকা  আয় করা সম্ভব । শুধুমাত্র ৫০০০০ টাকা বিনিয়োগ করে । প্রতি এক জোড়া পাখি গড়ে ১২ মাসে ৮থেকে ১০ বার বাচ্চা জন্ম দেয়। প্রতিবাদে ২ টি বাচ্চা জন্ম দেয়। গড়ে বছরে ১৮ টি বাচ্চা জন্ম দেয়। নতুন বাচ্চা পাখি চার থেকে পাঁচ মাসে পূর্ণবয়স্ক হয়ে যায় ।
প্রতি জোড়া পাখির একমাসে খাবার খরচ ৫০ টাকা । তাহলে ৪ মাসে একজোড়া বাঁচ্চার পেছনে খরচ হয় ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। এক জোড়া পূর্ণবয়স্ক সিরাজি কবুতরের মূল্য ২ থেকে ৩ হাজার টাকা । মাসে এর খাবার খরচ আসে ২০০-৩০০ টাকা । গড়ে এক জোড়া পূর্ণবয়স্ক সিরাজি কবুতরের দাম ২০০০ টাকা হিসাব করলে । সব খরচ বাদ দিয়ে লাভ থাকে ১৭০০ টাকার মতো।

এক জোড়া পাখি থেকে যদি বছরে নয় জোড়া (১৮টি) বাচ্চা পাওয়া যায় এর বিক্রয় মূল্য খাবার খরচ বাদে আসে ১৭৩০০ টাকা ।
এই টাকাও ২৩০০ কম হলে তবুও ১৫০০০ টাকা।

২০×১৫০০০ =৩০০০০০৳
গড়ে এক মাসে ইনকাম আসবে
৩০০০০০÷১২= ২৫০০০৳

এই সিরাজি কবুতর পালনের জন্য শুধু প্রয়োজন ধৈর্য আর সঠিকভাবে যত্ন নেয়া। সঠিকভাবে যত্ন না নিলে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল আসবে না । সিরাজি কবুতর খাবার দাবার প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে দিতে হবে এবং খাবারের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

 

অনলাইনে পাখি কোথায় পাওয়া যায়ঃ

দোকানের পাশাপাশি পাখি এখন অনলাইনে অর্ডার করে কিনতে পারবেন। অর্ডার করতে নিচে দেয়া পাখি লেখার উপর ক্লিক করুনঃ

 

পাখি

2 Responses

  1. ৫০,০০০/- টাকা বিনিয়োগ করতে চাচ্ছি। বিভিন্ন রংয়ের সিরাজি পাওয়া যাবে কোথায়? তথ্য দিয়ে সহায়তা করবেন প্লিজ।

    1. আমাদের কাছে সিরাজি নেই ভাই আপনি একটু কষ্ট করে ইন্টারনেটে সার্চ করে দেখতে পারেন। ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *