মাশরুম সংগ্রহ ও সংরক্ষণ

18th October 2019 0 Comments

আমরা জানি ছত্রাক ফসলের অনেক রোগের জন্য দায়ী। কিন্তু সব ছত্রাক রোগ সৃষ্টি করে না। অনেক ছত্রাক রয়েছে যারা আমাদের জন্য উপকারী। মাশরুম এমন এক ধরনের ছত্রাক যা সম্পূর্ণ খাওয়ার উপযোগী, পুষ্টিকর, সুস্বাদু ও ঔষধিগুণ সম্পন্ন। আসলে মাশরুম এক ধরনের মৃতজীবী ছত্রাকের ফলন্ত অঙ্গ যা ভক্ষণযোগ্য। অনেকে ভুল করে মাশরুম ও ব্যাঙের ছাতাকে এক জিনিস মনে করে। ব্যাঙের ছাতা প্রাকৃতিকভাবে যত্রতত্র গজিয়ে ওঠা বিষাক্ত ছত্রাকের ফলন্ত অঙ্গ। আর মাশরুম টিস্যু কালচার পদ্ধতিতে উৎপন্ন বীজ দ্বারা পরিচ্ছনড়ব পরিবেশে চাষ করা সবজি।

 

মাশরুম সংগ্রহের সময় ও সংগ্রহ কৌশলঃ

ক) মাশরুম যথেষ্ট বড় হয়েছে কিন্তু মাশরুম পিলিয়াসের শিরাগুলো ঢিলা হয়নি অথবা কিনারা পাতলা হয়ে ফেটে যায়নি এমতাবস্থায় মাশরুম সংগ্রহ করতে হবে।
খ) চাষ ঘরের তাপমাত্রা অতিরিক্ত থাকলে মাশরুম সংগ্রহ করা উচিত নয়, সেজন্য সকালে অথবা বিকেলে মাশরুম সংগ্রহ করা উচিত।
গ) প্যাকেটের মাশরুম পাঁচ আঙ্গুলের সাহায্যে আলতো মোচড় দিয়ে তুলে নিতে হবে।
ঘ) সংগৃহীত মাশরুম গোড়া কেটে পরিচ্ছন্ন করে গ্রেডিং করতে হবে।
ঙ) গ্রেড অনুযায়ী মাশরুমগুলোকে ০.২-০.২৫ মিঃ মিঃ পুরুত্বের পিপি ব্যাগে ভরে সিলিং করে বাজারজাত করতে হবে।

 

মাশরুম সংরক্ষণঃ

তাজা মাশরুমঃ

ক) তাজা মাশরুম তোলার ১২ ঘন্টা পূর্বে সরাসরি গায়ে পানি স্প্রে না করলে সেই মাশরুম তুলে, কেটে গ্রেডিং করে পি পি ব্যাগের মধ্যে সিলিং করে ঘরে ঠান্ডা জায়গায় ২ থেকে ৩ দিন রেখে খাওয়া যায়।
খ) রেফ্রিজারেটরের মধ্যে নরমাল চেম্বারে (১০ ডিগ্রী সেঃ তাপমাত্রায়) সিলিং অবস্থায় ৭/৮ দিন রেখে খাওয়া যায়। তবে এক্ষেত্রে প্যাকেটটি রেফ্রিজারেটর থেকে বের করে একবারেই পুরো প্যাকেটের মাশরুম খেয়ে ফেলতে হবে। তাই প্যাকেট করার সময় পারিবারিক প্রয়োজন অনুযায়ী ছোট ছোট প্যাকেট করা উচিত।
গ) বাসাবাড়িতে দীর্ঘ দিন রেখে খাওয়ার জন্য ২% ফুটন্ত লবণ পানিতে ২ থেকে ৩ মিনিট সিদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে টিফিন বক্সে অথবা ঢাকনাযুক্ত কৌটায় ডিফ ফ্রীজের মধ্যে ৫ থেকে ৬ মাস রাখা যাবে।
ঘ) এছাড়া মাশরুম ব্লান্সিং করে ব্রাইন সলিউশনে ৫-৬ মাস রেখে খাওয়া যায়। এক্ষেত্রে ব্লান্সিং করার পদ্ধতি হচ্ছে ২% ফুটন্ত লবণ পানিতে ২ থেকে ৫ মিনিট মাশরুম সিদ্ধ করে বিশুদ্ধ ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ২% লবণ (সোডিয়াম/পটাসিয়াম মেটাবাইসালফাইট) ও ১% সাইট্রিক এসিড মিশ্রিত ব্রাইন সলিউশনে এয়ার টাইট করে স্ট্রেলাইজড করার পরে ঠান্ডা করে ৫-৬ মাস সংরক্ষণ করা যায়।

শুকনা মাশরুমঃ

মাশরুম রোদে, ডিহাইড্রেশন পদ্ধতিতে অথবা ইলেকট্রিক ড্রায়ারে শুকিয়ে এয়ার টাইট প্যাকেটে অথবা প্লাস্টিক বোতলে ৫-৬ মাস রেখে সংরক্ষণ করা যায়। শুকনা মাশরুম ব্লেন্ডার মেশিনে পাউডার করে এয়ার টাইট প্যাকেটে রেখে একই ভাবে ৫-৬ মাস সংরক্ষণ করা যায়।

 

 

অনলাইনে মাশরুম কোথায় পাওয়া যায়ঃ

দেশের খুব কম যায়গায় এই মাশরুম পাওয়া যাআয় তবে অনলাইনে অর্ডার করলে আপনি মাশরুম পেয়ে যাবেন আপনার বাসায় । অর্ডার করতে নিচে দেয়া মাশরুম লেখা লিঙ্কে ক্লিক করুনঃ

 

 

মাশরুম

Leave a Comment

Your email address will not be published.