বিটরুটের পুষ্টিগুণ

9th February 2020 0 Comments

 

বিট খেতে ভালোবাসেন অনেকেই। তাহলে আজকে জেনে নিন বিট খাওয়ার উপকারিতা। বিটের মধ্যে বিভিন্ন ধরণের মিনারেল পাওয়া যায় যেমন ক্যালসিয়াম‚ আয়রন‚ ম্যাগনেসিয়াম‚ পটাসিয়াম‚ সোডিয়াম ফসফরাস আর জিঙ্ক। এছাড়াও এতে ফোলেট এবং ভিটামিন এ, বি, সি, পাওয়া যায়। এছাড়াও এতে আরও রয়েছে নাইট্রেট আর ফটোকেমিক্যাল কম্পাউন্ড আছে যা শরীরের জন্য খুব উপকারী।  


১। উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে বিটরুট। আমেরিকার এক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা মতে, ১০০ গ্রাম বিট কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিক করে তুলতে পারে।
২। ডায়াটারি ফাইবার রয়েছে বিটে যা খাবার দ্রুত হজমে সাহায্য করে।
৩। বিটরুটে  প্রচুর পরিমাণে ম্যাগেনেসিয়াম ও কপার রয়েছে। এসব উপাদান হাড় মজবুত রাখে।
৪। মস্তিষ্কের সুরক্ষায় এই সবজির জুড়ি নেই। অ্যালঝেইমার বা স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া রোধ করতে নিয়মিত খান বিট।
৫। ক্যানসার ও ডায়াবেটিসের মতো রোগের ঝুঁকি কমায় বিটরুট।
৬। প্রচুর পরিমাণে পানি ও খুবই স্বল্প পরিমাণে ক্যালোরি ও ফ্যাট রয়েছে বিটে। ফলে ওজন কমাতে চাইলে ডায়েট লিস্টে রাখতে পারেন রঙিন এই সবজি।
৭। প্রচুর পরিমাণে আয়রন মেলে বিট থেকে। নিয়মিত এটি খেলে তাই রক্তশূন্যতা দূর হয়।
৮। বিটরুটে থাকা বিটা ক্যারোটিন দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।
৯। বিটে থাকা ভিটামিন এ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের ফ্রি র‍্যাডিক্যালসের সঙ্গে লড়াই করতে সক্ষম। তাই নিয়মিত বিট খেলে ত্বকে বলিরেখা পড়ে না সহজে।উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে বিটরুট। আমেরিকার এক জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা মতে, ১০০ গ্রাম বিট কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই আপনার রক্তচাপ স্বাভাবিক করে তুলতে পারে।
ডায়াটারি ফাইবার রয়েছে বিটে যা খাবার দ্রুত হজমে সাহায্য করে।
১০। বিটরুটে  প্রচুর পরিমাণে ম্যাগেনেসিয়াম ও কপার রয়েছে। এসব উপাদান হাড় মজবুত রাখে।
১১। মস্তিষ্কের সুরক্ষায় এই সবজির জুড়ি নেই। অ্যালঝেইমার বা স্মৃতিশক্তি লোপ পাওয়া রোধ করতে নিয়মিত খান বিট।
১২। ক্যানসার ও ডায়াবেটিসের মতো রোগের ঝুঁকি কমায় বিটরুট।
১৩। প্রচুর পরিমাণে পানি ও খুবই স্বল্প পরিমাণে ক্যালোরি ও ফ্যাট রয়েছে বিটে। ফলে ১৪। ১৪। ওজন কমাতে চাইলে ডায়েট লিস্টে রাখতে পারেন রঙিন এই সবজি।
প্রচুর পরিমাণে আয়রন মেলে বিট থেকে। নিয়মিত এটি খেলে তাই রক্তশূন্যতা দূর হয়।
বিটরুটে থাকা বিটা ক্যারোটিন দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।
১৫। বিটে থাকা ভিটামিন এ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের ফ্রি র‍্যাডিক্যালসের সঙ্গে লড়াই করতে সক্ষম। তাই নিয়মিত বিট খেলে ত্বকে বলিরেখা পড়ে না সহজে। 

Leave a Comment

Your email address will not be published.