বারি ডাটা ১

29th October 2019 0 Comments

ডাটা অন্যতম গ্রীষ্মকালীন সবজি। ডাটায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন-এ, বি, সি, ডি এবং ক্যালসিয়াম ও লৌহ বিদ্যমান। ডাটার কাণ্ডের চেয়ে পাতা বেশি পুষ্টিকর। খুব কম সবজিতে এত পরিমাণে বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন ও খনিজ লবণ থাকে।  অনেক জাতের ডাটা রয়েছে যেমন, বারি ডাঁটা-১, বারি ডাঁটা-২, বাঁশপাতা, আখি, সুফলা-১, কে এস ০১, ভুটান সফট, রেড ম্যান, অপরাপা, লাবনী।

তবে আজকের লেখায় জানবো বারি ডাটা ১ সম্বন্ধে-

  • আঞ্চলিক নামঃ লাবনী
  • অবমূক্তকারী প্রতিষ্ঠানঃ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট

জীবনকালঃ

 বীজ বপনের ৪০-৪৫ দিনের মধ্যেই খাওয়ার উপযোগী হয়।

সিরিজ সংখ্যাঃ ১

উৎপাদন ( সেচ সহ ) / প্রতি হেক্টরঃ ৩২-৩৫ টন কেজি

উৎপাদন ( সেচ ছাড়া ) / প্রতি হেক্টরঃ ০ কেজি

জাত এর বৈশিষ্টঃ

১। গ্রীষ্মকালে চাষ উপযোগী। তবে বছরের যে কোন সময় চাষ করা যায়।২। কান্ড খাড়া, হালকা বেগুনী রংয়ের, নরম ও কম আঁশযুক্ত।৩। পাতার নিচের অংশ হালকা বেগুনী এবং উপরের অংশ গাঢ় বেগুনী রংয়ের।৪। দ্রুত বর্ধনশীল জাত।৫। হেক্টর প্রতি ফলন ৩২-৩৫ টন।

চাষাবাদ পদ্ধতিঃ

১ । বপনের সময় : ফেব্রুয়ারী থেকে জুন।

২ । মাড়াইয়ের সময় : বীজ বপনের ৪০-৪৫ দিনের মধ্যেই খাওয়ার উপযোগী হয়।

৩ । সার ব্যবস্থাপনা (হেক্টর প্রতি) :

হেক্টর প্রতি গোবর ১০ টন, ইউরিয়া ২৫০ কেজি, টিএসপি ১০০ কেজি, এমওপি ১৫০ কেজি ও জিপসাম ৭৫ কেজি প্রয়োগ করতে হবে। শেষ চাষের সময় সম্পূর্ণ গোবর, টিএসপি, এমওপি, জিপসাম ও ১২৫ কেজি ইউরিয়া; বীজ বপনের ২০ দিন ও ৪০ দিন পর হেক্টর প্রতি ৬৭.৫ কেজি করে ইউরিয়া প্রয়োগ করতে হবে।

 

 

অনলাইনে বীজ কোথায় পাওয়া যায়ঃ

দোকানের পাশাপাশি এখন অনলাইনে বীজ কিনতে পারবেন। কিনতে নিচে বীজ লেখা লিঙ্কের উপর ক্লিক করুনঃ

বীজ

Leave a Comment

Your email address will not be published.