বারান্দা বা ছাদে বোম্বাই মরিচ চাষ

14th March 2020 0 Comments


বোম্বাই বা  নাগা মরিচ, মরিচের একটি প্রজাতি, যা প্রচণ্ড ঝালের কারণে সমধিক পরিচিত। অন্যান্য আরো বহু নামে পরিচিত হলেও কখনও কখনও ভূত জলোকিয়া নামেও পরিচিত। পাশ্চাত্যের গণমাধ্যমে একে অনেক সময়ই, হয়তো ভুল করে, ভূত মরিচ বলা হয়ে থাকে এর প্রচণ্ড ঝালের কারণে।পতিত জমিতে বাণিজ্যিকভাবে চাষ করতে পারেন বোম্বাই মরিচ অথবা চাইলে বারান্দা বা ছাদেও চাষ করতে পারেন এই মরিচ।

বারান্দা বা ছাদে বোম্বাই মরিচ চাষ
প্রতিটি চারা লাগানোর আগে মাটি প্রস্তুত করে নিতে হবে। প্রতিটি ১০ ইঞ্চি টবের জন্য ১/৩ গোবর (২ ভাগ মাটি, ১ ভাগ গোবর), ২ চিমটি টিএসপি, ১ চিমটি ইউরিয়া, ১ চিমটি পটাশ সার, অল্প পরিমাণ সরিষার খৈল দিয়ে ৪-৫ দিন মাটি রোদে শুকাতে দিন। তারপর এ মাটিতে চারা লাগানো হয়। চারা যদি সবল না হয় তাহলে দিনে ২-৩ বার ইউরিয়া মিশ্রিত পানি স্প্রে করলে চারা সবল হয়ে যাবে।

সপ্তাহে ১ দিন মাটি খুঁচিয়ে আলগা করে দেবেন, আর আগাছা সরিয়ে দেবেন। চারা লাগানোর ২০-২৫ দিনের মধ্যেই ফুল আসবে গাছে। আর সেই ফুল থেকে আস্তে আস্তে ধরতে শুরু করবে আপনার প্রিয় বোম্বাই মরিচ। মরিচ যত বেশি দিন গাছে থাকবে তত ঝাল হবে।

খুব নিচের শাখাগুলো কেটে/ভেঙে ফেলবেন, নাহলে গাছের জোর কমে যাবে, মরিচ হবে ছোট। গাছ রাখবেন কড়া রোদে, ছায়ায় থাকলে মরিচ ধরবে না।
১টা মরিচ গাছ অনেক দিন ফল দেবে। আর ১টা গাছে যে পরিমাণ মরিচ ধরে তা খেয়েই শেষ করা কঠিন।
২-৪টা গাছ হলে পোকামাকড় হাতেই মেরে দমন করা যায়। গাছ বেশি হলে অথবা কীটনাশক দিতে চাইলে মরটাস ব্যবহার করা যায় তবে শাকসবজিতে কীটনাশক ব্যবহার না করাই ভালো।
এবার নিজেই একবার চেষ্টা করে দেখুন কত সহজে ফলানো যায় আপনার প্রিয় বোম্বাই মরিচ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.