বড় ছাতিম

15th December 2019 0 Comments

বড় ছাতিম একটি বৃহৎ ও চিরসবুজ বৃক্ষ।  এর বৈজ্ঞানিক নাম Alstonia scholaris। এটি এপোসিনাসি পরিবারের এলস্টোনিয়া গণের অন্তর্ভুক্ত।  বড় ধরনের চিরসবুজ, ঘন পাতাযুক্ত গাছগুলি ১৫-২০ মিটার পর্যন্ত উঁচু হয়। কান্ডের চারদিকে শাখা এবং শাখার চারদিকে মনসা পাতার মতো ৪-৭টি পাতা ছত্রাকারে ছড়ানো থাকে। সম্ভবত এজন্য এর নাম ছাতিম। আবার প্রায় সব শাখারই অগ্রভাগে ছত্রাকারে ৭টি পাতা সাজানো থাকে তাই এর অন্য নাম সপ্তপর্ণা বা সপ্তপর্নী। পাতা ১০-২০ সে.মি. লম্বা হয়। গাছের পুরু বাকল/ছালের উপরিভাগ খসখসে, অমসৃণ ও গাঢ় বাদামি বর্ণের এবং ভিতরটা সাদা ও দানাযুক্ত। গাছের সকল অংশে তিত্ত স্বাদের, সাদা দুধের মতো আঠা থাকে। শরৎকালে ফুল ও শীতকালে সরু বরবটির মত ফল হয়। এর ফুলের উৎকৃষ্ট গন্ধ থাকলেও সেটি তীব্র। বড় ছাতিম গাছ বাংলাদেশ সহ ভারতের সর্বত্র জন্মায়। বড় ছাতিম গাছের ছাল, পাতা, ফল ও আঠা ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে।


উপকারিতাঃ

১। বড় ছাতিমের ছাল থেঁতো করে সিদ্ধ করে সেই পানি দিয়ে গোসল করলে কুষ্ঠ রোগ ভালো হয়।

২। বড় ছাতিমের ছাল থেঁতো করে সিদ্ধ সকাল বিকেল খেলে জ্বর দ্রুত ভালো হয়ে যায়।

৩। দাঁতে পোকা হলে ছাতিম গাছের আঠা পোকা লাগা দাঁতের ছিদ্রে লাগালে পোকা ভালো হয়।

৪। বড় ছাতিমের ফুল চূর্ণ করে এর সাথে পিপুল চূর্ণ করে দই এর সাথে মিশিয়ে খেলে হাঁপানি ভালো হয়।

৫। বাতের ব্যাথা হলে বড় ছাতিমের ছাল সিদ্ধ করে ছেকে এই ক্বাথ খেলে ব্যাতের ব্যথায় উপকার পাওয়া যায়।

৬। বড় ছাতিম ছাল চূর্ণ করে গরম দুধের সাথে খেলে বুকে সর্দি বসা ভালো হয়।

৭। শ্বাস নিতে কষ্ট হলে বড় ছাতিম ফুল চূর্ণ করে লবন মিশিয়ে গরম পানি সহ খেলে শ্বাসকষ্টে উপকার পাওয়া যায়।

৮। বড় ছাতিমের আঠা গরম পানিতে মিশিয়ে কুলকুচি করলে পাইয়োরিয়া ভালো হয়।

অনলাইনে গাছপালা কোথায় পাওয়া যায়ঃ

নার্সারির পাসাপাসি গাছপালা কিনতে পারবেন এখন অনলাইনে ।গাছপালা কিনতে ভিজিট করুন নিচে দেয়া নার্সারী লেখার উপর এবং অর্ডার করতে পারেন দেশের যেকোন প্রান্ত থেকেঃ নার্সারি

https://krishibazar.com.bd/product-category/nursery/

Leave a Comment

Your email address will not be published.