পাতি বটেরা বা বড় বটেরা  (ফ্যাসিয়ানিডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত(কোটার্নিক্স) গণের এক প্রজাতির রঙচঙে কোয়েল।পাতি বটেরার বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ বটেরা (ল্যাটিন coturnix = বটেরা)। গত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা ক্রমেই কমছে, তবে এখনও আশঙ্কাজনক পর্যায়ে যেয়ে পৌঁছেনি। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে Least Concern বা ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বলে ঘোষণা করেছে। আফ্রিকা, এশিয়া ও ইউরোপের অধিকাংশ এলাকা জুড়ে এদের বিস্তৃতি। মোট ১ কোটি ৬২ লাখ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এরা বিস্তৃত।বাংলাদেশের ১৯৭৪ ও ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত। জাপানি বটেরার সাথে এদের অস্বাভাবিক মিল, কেবল ডাক আলাদা।

 

পাতি বটেরা ছোট গোলাকার পাখি।এরা খয়েরি রঙের হয় এবং চোখে সাদা ডোরাকাটা দাগ আছে।পুরুষ প্রজাতিতে সাদা রঙের চিবুক দেখতে পাওয়া যায়।পরিযায়ী স‍্বভাবের জন্য এদের বড় ডানা আছে।এরা লম্বায় ১৮ থেকে ২১.৯ ইঞ্চি এবং ওজন ৯১ থেকে ১৩১ গ্রাম হয়ে থাকে।

পাতি বটেরা ভূচর পাখি ।এরা মাটিতে থাকা বীজ ও পোকামাকড় খেয়ে থাকে। এদের সচারচ দেখা যায় না । এরা নিজেদের শস্যের মধ্যে লুকিয়ে রাখে। যদিও এদের মাঝে মধ্যে দেখা যায় তখন এরা খুব সাবধানে থাকে এবং আবারো লুকিয়ে পড়ে ।

পাতি বটেরার বয়স যখন ৬ থেকে ৮ মাস হয় তখন এরা প্রজননের উপযোগী হয় ।এরা একসাথে ৬ থেকে ১২ টি ডিম পাড়ে।

 

অনলাইনে পাখি কোথায় পাওয়া যায়ঃ

দোকানের পাশাপাশি পাখি এখন অনলাইনে অর্ডার করে কিনতে পারবেন। অর্ডার করতে নিচে দেয়া পাখি লেখার উপর ক্লিক করুনঃ

 

পাখি

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *