জিনসেং

19th December 2019 0 Comments

জিনসেং কে বলা হয় wonder herbs বা আশ্চর্য লতা। চীনে সহস্র বছর ধরে জিনসেং গাছের মূল আশ্চর্য রকম শক্তি উতপাদনকারী পথ্য হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এছাড়াও এর রয়েছে নানাবিধ গুন। 

মুলত দুই ধরণের জিনসেং ঔষধি গুনসম্পন্ন হিসেবে পরিচিত- আমেরিকান ও এশিয়ান। এর মধ্যে এশিয়ান জিনসেং অপেক্ষাকৃত বেশি কার্যকরী। এই দুই ধরণের জিনসেং কে বলা হয় প্যানাক্স জিনসেং।

প্যানাক্স শব্দটি এসেছে গ্রীক শব্দ “panacea” থেকে যার অর্থ হলো “All healer” বা সর্ব রোগের ঔষধ। জিনসেং সাদা (খোসা ছাড়ানো) ও লাল (খোসা সমেত) এই দুই রকম রূপে পাওয়া যায়। খোসা সমেত অবস্থায় এটি অধিক কার্যকরী। এদের মধ্যে থাকা জিনসেনোনোসাইড নামক একটি উপাদান এর কার্যক্ষমতার জন্য দায়ী। সাইবেরিয়ান জিনসেং নামে আরেক ধরণের গাছ আছে, যা জিনসেং বলে ভূল করা হলেও তা আসলে প্রকৃত জিনসেং না। জিনসেং ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়।


উপকারিতাঃ

১। জিনসেং খেলে উচ্চ রোগ প্রতিরোধক হিসেবে সাহায্য করে।

২। জিনসেং খেলে দেহের বলকারক,আনন্দদায়ক ও আয়ুবর্দ্ধক হয়।

৩। জিনসেং খেলে হজমের সমস্যা দূর হয়।

৪। জিনসেং খেলে কফ ও কাশি দূর করে।

৫। বমননাশক,কফ ও কাশ দূর করে।

৬। জিনসেং রক্তের কলেষ্টেরল কমাতে সাহায্য করে।

৭। জিনসেং খেলে মানসিক চাপ কমে।

৮। জিনসেং খেলে ত্বক সুন্দর থাকে।

Leave a Comment

Your email address will not be published.