গোলাপ জাম

21st October 2019 0 Comments

আমাদের দেশে প্রধানত তিন জাতের জাম পাওয়া যায়, ক্ষুদি-খুব ছোট জাতের এবং বড়-বেশ বড় জাতের ও মিষ্টি এবং গোলাপ জাম। গোলাপ জাম আর আগের মত তেমন দেখা যায় না। গোলাপ জাম দেখতে কালোজামের চেয়ে ভিন্ন,স্বাদ ও আলাদা। দেখতে অনেকটা ছোট পেয়ারার মত। কাঁচা অবস্থায় হালকা গোলাপি ও হালকা সবুজ রঙের থাকে,পাকলে ক্রিম রঙ ধারন করে। গোলাপ জাম সুস্বাদু ফল। এই ফলটি এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে।

গোলাপজাম বিভিন্ন এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন নামে পরিচিত যেমন,মালাইয়া আপেল, মালাবার পাম, জাম্বু, চম্পা। ফলটি পাকলে গোলাপ ফুলের মতো খুশবু বের হয়। এর পাতার রং গাঢ় সবুজ,একেবারে জামের পাতার মতো দেখতে। গ্রীষ্মের ফল এই গোলাপজাম। গোলাপ জাম দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার গাছ। গোলাপ জামে প্রচুর ক্যালসিয়াম,ক্যারোটিন,এবং ভিটামিন-সি আছে। এর বেশ কিছু ঔষধি গুণও আছে।

পুষ্টিগুণঃ

টক মিষ্টি স্বাদের এই ফলে প্রচুর ভিটামিন সি ছাড়াও রয়েছে ভিটামিন বি১, বি২, ক্যারোটিন এবং ক্যালসিয়াম। একটি গোলাপজামে প্রায় ৪০ কিলো ক্যালরি খাদ্যশক্তি থাকে।

উপকারিতাঃ

১। গোলাপ জাম গাছের ছাল ও পাতা সিদ্ধ করে এই ক্বাথ সেবন করলে পেটের পীড়ায় উপকার পাওয়া যায়। গোলাপ জাম গাছের পাতার রস খাওয়ালে ডায়রিয়া ভালো হয়।

২। গোলাপ জাম খেলে বমিভাব দূর হয়। গোলাপ জাম গাছের ছাল ও পাতা ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী।

 

অনলাইনে গাছপালা কোথায় পাওয়া যায়ঃ

 

নার্সারির পাসাপাসি গাছপালা কিনতে পারবেন এখন অনলাইনে ।গাছপালা কিনতে ভিজিট করুন নিচে দেয়া নার্সারী লেখার উপর এবং অর্ডার করতে পারেন দেশের যেকোন প্রান্ত থেকেঃ

 

নার্সারী

Leave a Comment

Your email address will not be published.