গাভী পালন

2nd January 2020 0 Comments

যে কোনো কিছু গড়তে সবার আগে প্রয়োজন প্রাথমিক প্রস্তুতি। এ প্রস্তুতির ওপর নির্ভর করে যে কোনো কাজের সফলতার ও ব্যর্থতা। ডেইরি ফার্ম গড়ে তুলতে প্রয়োজন আর্থিক সঙ্গতি, অভিজ্ঞতা ও গরুর নিরাপদ আশ্রয়। প্রথমেই বিশাল ফার্ম তৈরিতে হাত না দিয়ে ছোট পরিসরে কাজে হাত দেয়া ভালো। ৫ থেকে ৬টি গরু নিয়ে যাত্রা করে আস্তে আস্তে ফার্মকে সম্প্রসারণ করাই উত্তম। ২টি গরুর জন্য একজন দক্ষ লোক দরকার হয়। তবে খেয়াল রাখতে হবে লোকটির গরুর যত্ন নেয়ার পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে কিনা।

গাভী পালনের গুরুত্বঃ

  • দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে গাভীর গুরুত্ব অপরিসীম।
  • দেশের দরিদ্র জনগোস্টির গাভী পালনের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হতে পারে।
  • গাভী পালন আত্ম-কর্মসংস্থানের একটি উল্লেখযোগ্য উপায়।
  • গবাদি পশুর মাংস ও দুধ উন্নতমানের প্রাণীজ আমিষের উৎস।
  • আদিকাল পশুর চামড়া রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব।
  • শিং ও হাড় থেকে চিরুনি, বোতাম, ছাতা ও ছুরির বাট প্রভৃতি তৈরি করা যায়।
  • রক্ত থেকে হাস-মুরগি ও প্রাণীর খাদ্য তৈরি করা যায়। ক্ষুদ্রান্ত্র থেকে সারজিক্যাল সুতা, টেনিস র‍্যাকেট স্ট্রিং, মিউজিক্যাল স্ট্রিং প্রভৃতি তৈরি করা যায়।
  • গোবর উৎকৃষ্ট মানের জৈব সার। এছাড়া গ্রামে জ্বালানী হিসাবে গোবর ব্যবহৃত হয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published.