কোকো পিট

কোকো পিট
12th October 2019 0 Comments

শুকনো নারেকেলের আঁশ বা কয়ার এর গুঁড়া হলো কোকো পিটের মূল উপাদান। এই উপাদানগুলকে হাইড্রোলিক মেশিনে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে বিভিন্ন সাইজ ও ওজনের ব্লক/পিট আকারে তৈরি করা হয়।পৃথিবীর উন্নত দেশ গুলোতে বাড়ির ছাদে বা বারান্দায় বাগান করার জন্য অনেকেই মিডিয়াম বা মাটির বিকল্প হিসাবে কোকো পিট ব্যবহার করে থাকেন। ছাদ বাগান কিংবা বাণিজ্যিক চাষের জন্য কোকো পিট মাটির উন্নত বিকল্প।

 

 কোকো পিটের  বৈশিষ্ট্য:

১।কোকো পিটে আছে অকল্পনীয় পানি ধারন ক্ষমতা। গাছের জন্য ঠিক যতটুকু পানি দরকার ঠিক ততটুকু পানি এই কোকো পিট ধারন করে রাখে ফলে গাছের শিখড় বা মুলে পঁচন ধরে না।

২. কোকো পিট দিয়ে গাছ লাগালে ক্ষতিকারক পোকা মাকড়, ক্ষতিকারক ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারে না।

৩. কোকো পিটে দ্রুত পানি ও বাতাস আসা যাওয়া করতে পারে ফলে গাছের শিকড় দ্রুত বাড়ে। গাছের শিকড় বাড়ার কারনে গাছও দ্রুত বাড়ে এবং সাস্থ্যবান হয়।

৪. কোকো পিটে রাসায়নিক সার মিশানো ছাড়াও চাষ করা যায়। শুধু মাত্র ভার্মি কম্পোষ্ট/জৈব সার মিশিয়ে চাষ করা যায় ফলে রাসায়নিক মুক্ত নিরাপদ সবজি,ফল,ফুল, অর্কিড ও অন্যান্য গাছ উৎপাদন সম্ভব।

৫. কোকো পিট মাটির তুলনায় পরিষ্কার ও পরিছন্ন ফলে যেখানে গাছ রাখবেন সেই যায়গা গুলো যেমন আপনার ঘর,বারান্দা ও ছাদ নোংরা হবে না সর্বসময় পরিষ্কার ও পরিছন্ন থাকবে।

৬. কোকো পিটে বেড়ে উঠা গাছের ফল ও ফুল বড় ও পুষ্টিবান হয় এবং যার কারনে হাইড্রপোনিক্স বাগান মালিকেরা মাটি ব্যাবহার না করে কোকো পিট ব্যাবহার করে।

৭. কোকো পিট হালকা এবং ঝুরঝুরে হবার কারনে এর ভিতরে খুব সহজে মাটিতে গাছের জন্য খাদ্য তৈরিতে অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারে।

৮. কোকো পিটে প্রাকৃতিক মিনারেল থাকে যা উদ্ভিদের খাদ্য তৈরি এবং উপকারী অণুজীব সক্রিয় করার জন্য বিশেষ ভূমিকা রাখে।

৯. প্রাকৃতিকভাবেই কোকো পিটের পি এইচ এর মাত্রা থাকে ৪.২ থেকে ৬.২ এবং ক্ষারত্ব সহনশীল পর্যায় থাকে বলে উন্নত বিশ্বে এই কোকো পিটের ব্যবহার সব চাইতে বেশী।

১০. কোক পিটে আছে উন্নত পানি নিষ্কাশন পক্রিয়া ফলে কোকো পিটে গাছের মৃত্যুহার খুব কম।

১১. বীজতলা ও বীজ জার্মিনেশন এর এক অসাধারন মাধ্যম এই কোকো পিট।

১২. মাটিবিহীন বানিজ্যিক চাষাবাদ এর বিকল্প মাধ্যম।

১৩. কোকো পিট মাটির তুলনায় ওজনে অনেক গুন হাল্কা ফলে গাছের টব বা পাত্র সহজে বহন করা যায়। ফলে ছাদের উপর অতিরিক্ত চাপ পরেনা।

 

কোকো পিট ব্যবহারের নিয়মাবলীঃ

প্রতি কেজি কোকো পিটের সাথে প্রয়োজন অনুযায়ী পানি মেশাতে হবে যাতে বেশী ভেজা ভেজা না হয় আবার খুব শুকনোও না হয়। পানি অল্প অল্প করে কিছুক্ষণ পর পর কোকো পিটের উপর ঢালতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে পানি যাতে বেশি হয়ে থেক থেকে না হয়ে যায় আর যদি হয়েও যায় তাহলে নেট জাতিয় কাপড়ে রেখে ঝুলিয়ে অতিরিক্ত পানি ঝরিয়ে নিতে হবে।

 

কোকোপিট কিনবেন কোথায়

আপনি কোকোপিট এখন অনলাইনে কিনতে পারবেন। নিচে দেয়া  লিঙ্কে ক্লিক করে সরাসরি অর্ডার করতে পারেবেন।

https://dmrebd.com/product/coco-peat/

Leave a Comment

Your email address will not be published.