কুঞ্জলতা ফুল

29th October 2019 0 Comments

কুঞ্জলতা একবর্ষজীবি লতা। এর আরো কিছু নাম আছে।কামলতা, তারালতা, গেট ফুল, সূর্যকান্তি ফুল ইত্যাদী। এই ফুলগুলো সকালে ফোটে বলে একে সূর্যকান্তি বলে। পাঁচকোণা বিশিষ্ট তারকাকৃতি ফুল হয় বলে একে তারালতা নামেও ডাকা হয়। এটি এক বর্ষজীবি লতা, ১ থেকে ৩ মিটার লম্বা হয়। এর পাতা ২ থেকে ৯ সেন্টিমিটার লম্বা, গভীরভাবে খণ্ডিত, পাতার প্রত্যেক পাশে ৯ থেকে ১৯টি করে খণ্ড থাকে। এর ফুল ৩ থেকে ৪ সেন্টিমিটার লম্বা এবং ২ সেন্টিমিটার ব্যাসবিশিষ্ট, মাইক আকৃতির, পাপড়িতে ৫টি সুচালো অগ্রভাগ থাকে। এ প্রজাতির ফুল লাল, গোলাপি বা সাদা হতে পারে। ফুল ঝরে গিয়ে ছোট ফল হয়, যাতে কালো বীজ থাকে। বীজ থেকে ফুলের বংশবিস্তার। বাংলাদেশ ও ভারতের সর্বত্র পাওয়া যায়। কুঞ্জলতা ঔষধি গুণাগুণ ও রয়েছে।

 

উপকারিতাঃ

১। যাদের রাতে ভাল ঘুম হয়না তারা কুঞ্জলতা গাছের শুকনো ডাল ও পাতার গুঁড়ো ঘিয়ের সাথে মিশিয়ে সমপরিমাণ মধু বা চিনি মিশিয়ে সেটি শোয়ার আগে খেলে অনিদ্রা কেটে যায়।

২। কেথাও কেঁটে গিয়ে বা আঘাত লেগে শরীরে যদি বিষাক্ত ঘা হয়ে যায় তবে কুঞ্জলতার কচি ডাল পাতা বেঁটে তার রস দিয়ে ঘা ভালবাবে ধুয়ে দিলে উপকার পাওয়া যায়।

৩। কুঞ্জলতার শুকনো গাছের গুঁড়ো ঘায়ের উপর ছড়িয়ে দিলে উপকার পাওয়া যায়। ৪। পিঠে ফোঁড়া হলে কুঞ্জলতার পাতা বেটে প্রলেপ দিলে ফোঁড়া পেকে ফেটে যায়।

৫। অর্শ রোগ কমাতে কুঞ্জলতা গাছের পাতা বেঁটে ঘিয়ের সাথে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়। তবে উচ্চ রক্ত চাপের রোগীর অর্শ রোগ সারাতে ঘি ছাড়াই খাবেন

Leave a Comment

Your email address will not be published.