ইক্ষু একটি বর্ষজীবি উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Saccharum officinarum। এটি পোয়াসি পরিবারের একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ। ইক্ষু রসে আছে অনেক পুষ্টিগুন আছে। ইক্ষুর কান্ডের একটি টুকরা দুই-তৃতীয়াংশ মাটিতে পুঁতে দিয়ে এর চাষ করা হয়। এর রস চিনি ও গুড় তৈরির জন্য ব্যবহার হয় বলে এর চাষ করা হয়।

 

ইক্ষু বাংলাদেশে প্রচুর পরিমানে চাষ করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশে গড়ে প্রতি বছর ০.৪৩ মিলিয়ন একর জমিতে ৭.৩ মিলিয়ন মে.টন ইক্ষু উৎপন্ন হয়। দেশের ১৫টি চিনিকলে বছরে গড়ে ১.৫-১.৯৯ লক্ষ মে. টন চিনি উৎপন্ন হয় বাকিটা গুড়ও খাওয়ার জন্য ব্যবহার হয়। এছাড়াও ভারতের প্রায় সকল রাজ্যেই ইক্ষুর চাষ করা হয়ে থাকে। উওরপ্রদেশ ও বিহার রাজ্যে ইক্ষুর চাষ সবচেয়ে বেশি হয়। নোনা জমিতে ইক্ষুর চাষ করা হলে ইক্ষুর রসে ও গুড়ে লবনাক্ত স্বাদ পাওয়া যায়। সাধারণত অগ্রহায়ণ – পৌষ মাসে ইক্ষু কাটা হয় ও মাড়াই হয়। পৌষ মাঘ মাসেই ইক্ষু কাটা হয় এবং এর রস, চিনি, গুড় সবই ঔষধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। রাসায়নিক উপাদান: এতে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, আয়রন, পটাসিয়াম এবং অন্যান্য রাসায়নিক উপাদান আছে।কারন এর রসে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম ও ক্যালসিয়াম আছে যা পানিশূন্যতা দূর করতে সাহায্য করে।

 

পুষ্টিগুণ:

ইক্ষুতে প্রচুর পরিমানে পুষ্টিগুন রয়েছে। এতে প্রতি ১০০ গ্রাম ইক্ষু তে রয়েছে খাদ্যশক্তি- ৩৯ ক্যালরি আমিষ- ০.১ গ্রাম চর্বি- ০.২ গ্রাম শর্করা- ৯.১ গ্রাম ক্যালসিয়াম- ১০ মিলিগ্রাম ফসফরাস- ১০ মিলিগ্রাম আয়রন- ১.১ মিলিগ্রাম ভিটামিন এ- ১০ আইইউ ভিটামিন বি- ০.০৪ মিলিগ্রাম। এছাড়াও এতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, প্রোটিন,আয়রন ও ভিটামিন এ, সি, বি১, বি২,বি৩,বি৫ এবং বি৬। তাই ইক্ষুর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলছে।

 

উপকারিতা:

 

১। প্রোস্টেট্ গ্রন্থি ফুললে প্রতিদিন ইক্ষুর রস দিনে দুবার খেলে উপকার পাওয়া যায়।

২। খুব বেশি কাশি হলে ইক্ষুর রসের সাথে গরম ঘি মিশিয়ে খেলে কাশি কমে যায়।

৩। নাসা রোগ হলে নাক বন্ধ হয়ে যায়। এমন অবস্থায় ইক্ষুর রস নস্যির মত নিন। নাসা রোগ ভালো হয়ে যাবে।

৪। শিশুর দেহে পুষ্টি হচ্ছে না দিন দিন শুকিয়ে যাচ্ছে । তাহলে প্রতিদিন ইক্ষুর রস খাওয়ান উপকার পাবেন।

৫। ইক্ষুর রসে প্রচুর পরিমাণে মিনারেল আছে যা দাঁতের ক্ষতি এবং নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ প্রতিরোধ করে।

৬। জন্ডিস হলে ইক্ষুর রস প্রতিদিন খেলে খুর দ্রুত উপকার পাওয়া যায়।

৭। ইক্ষুর রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করে ব্রনে লাগালে ব্রন ভালো হয়ে যায়।

৮। ইক্ষুর রসে রয়েছে ক্যালসিয়াম। তাই এই রস খেলে দাঁত ও হাড়ের শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

 

অনলাইনে গাছপালা কোথায় পাওয়া যায়ঃ

 

নার্সারির পাসাপাসি গাছপালা কিনতে পারবেন এখন অনলাইনে ।গাছপালা কিনতে ভিজিট করুন নিচে দেয়া নার্সারী লেখার উপর এবং অর্ডার করতে পারেন দেশের যেকোন প্রান্ত থেকেঃ

নার্সারি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *